কৃষকদের সামনে ঝুঁকতে বাধ্য হল মোদী সরকার , আজই কৃষকদের সঙ্গে বৈঠক

প্রতিফলক নিউজ ব্যুরো : কৃষি বিল প্রত্যাহার নিয়ে আন্দোলনের আঁচ গিয়ে পড়েছে রাজধানীতে। আগেই কৃষক সংগঠনগুলি কেন্দ্রকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল, কেন্দ্রের শর্তসাপেক্ষ আলোচনায় বসতে রাজি নন তাঁরা। প্রয়োজনে রাজধানী ঘেরাও করা হবে। সেই প্রস্তুতি নিয়েই এগোচ্ছিলেন আন্দোলনকারীরা। নানা বিতর্কের মধ্যে পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে আজ, মঙ্গলবার দিল্লি সীমানায় আন্দোলনকারী কৃষকদের বৈঠকের জন্য আহ্বান জানাল কেন্দ্রীয় সরকার। বিকেল তিনটে নাগাদ দিল্লির বিজয় ভবনে এই বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, ৩ ডিসেম্বর বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কোভিড পরিস্থিতি এবং উত্তরভারতে শৈত্যপ্রবাহের কথা উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমর বৈঠকের দিন এগিয়ে নিয়ে আসার জন্য বলেন কৃষক সংগঠনের প্রতিনিধিদের। সোমবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে কৃষিমন্ত্রীর একপ্রস্থ আলোচনার পরই কৃষকদের সঙ্গে বৈঠকের দিন এগিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়। এরই মধ্যে সোমবার গভীর রাতে বিক্ষোভরত এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়। জানা গিয়েছে, প্রবল ঠান্ডায় তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে, শেষ পর্যন্ত মারা যান তিনি।

সোমবার রাতেই ৩২টি কৃষক সংগঠনকে এই বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি পাঠিয়েছে কৃষিমন্ত্রক। ক্রান্তিকারি কিসান ইউনিয়ন, ভারতীয় কিসান সভা, কুল সহিন্দ কিসান সভা, কৃতি কিসান ইউনিয়ন এবং পঞ্জাব কিসান ইউনিয়ন-এর মতো বিভিন্ন কৃষক সংগঠনকে মঙ্গলবার বৈঠকের জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এই প্রসঙ্গে কৃষক সংগঠনগুলির বক্তব্য, ‘আলোচনার দরজা আমরা কখনই বন্ধ করিনি। কিন্তু সেই আলোচনা হতে হবে শর্তহীন, আন্তরিক এবং সর্বব্যাপী।’
অন্যদিকে, কৃষক সংগঠনের এই দাবি মানতে নারাজ নরেন্দ্র মোদির সরকার। সোমবার নিজের নির্বাচনী কেন্দ্র বারাণসীতে প্রধামমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সড়ক উদ্বোধন অনুষ্ঠান থেকে এমনই বার্তা দিয়েছেন।

WhatsApp chat
error: