ব্যাঙ্কের অমানবিকতা, পেনশন তুলতে প্রাপককেই আসতে হবে; শয্যাশায়ী মাকে খাট সহ টানতে টানতে ব্যাঙ্কে নিয়ে গেল মেয়ে

প্রতিফলক ডেস্কঃ ১০৯ বছরের বৃদ্ধা মায়ের জন্য পেনশন তুলতে ৬০ বছরের মেয়ে ব্যাংক গিয়েছিলেন। ব্যাংকের দীর্ঘ লাইন পেরিয়ে যখন কাউন্টারের পৌঁছান তখন ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দেন প্রাপক কে নিজে আসতে হবে তা না হলে টাকা দেওয়া হবে না। তাই ১০০ বছরের বৃদ্ধা অসুস্থ মাকে খাটে শুইয়ে টানতে টানতে ব্যাঙ্কে হাজির করলেন মেয়ে। এই ঘটনা সামনে আসতে তীব্র সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

ঘটনাটি ওড়িশার নুয়াপাড়া জেলার বরগাঁও গ্রামের। পুঞ্জিমাতা নামে ওই মহিলা তার মায়ের পেনশন তুলতে গেছিলেন উৎকল গ্রামীণ ব্যাংকে। তাঁর মায়ের বয়স ১০০, তিনি শয্যাশায়ী। ওই অসুস্থ মহিলার পক্ষে চলাফেরা করা তো দূরের কথা, উঠে বসারও সামর্থ ছিলনা। কিন্তু পেনশন নিতে গেলে যে কোন অবস্থায় তাকে ব্যাংকে নিয়ে যেতেই হবে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের আদেশ। তাই পুঞ্জিমাতা তার মা কে খাটে শুইয়ে কাঁচা রাস্তা ধরে টানতে টানতে নিয়ে যায় ব্যাংকে। পেনশনের টাকা ছিল মাত্র দেড় হাজার টাকা গাড়ি ভাড়া করলে হয়তো পেনশনের পুরো টাকাটাই লেগে যেত। তাই তাকে এই অসাধ্যসাধন করতে হয়েছে।

পুঞ্জিমাতার অভিযোগ, তিনি পেনশন তুলতে গিয়ে সমস্ত কাগজপত্র দেখালেও ব্যাংক কর্তৃপক্ষ পেনশন দিতে রাজি হয়নি। তারা বলে প্রাপক কে নিজে আসতে হবে না হলে পেনশনের টাকা দেওয়া সম্ভব হবে না। কোন উপায় না দেখে বাধ্য হয়ে খাটে শুইয়ে অসুস্থ মাকে ব্যাংকে নিয়ে যেতে হয় এভাবে। এ ঘটনার পর ব্যাংক কর্তৃপক্ষের তীব্র সমালোচনা শুরু হয়েছে।

ব্যাংকের এই আচরণকে অমানবিক বলে অভিযোগ করেছে গ্রামবাসীরা। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তাঁরা দিন-আনা-দিন-খাওয়া পরিবার। শুধুমাত্র বৃদ্ধার পেনশনের টাকায় তাদের সংসার চলে। টাকা পেতে দেরি হওয়ায় তাদের চাল কেনার পয়সাও ছিল না। এমনিতেই লকডাউনে চরম দুর্দিন চলছে কয়েক মাস ব্যাপী। তার ওপরে প্রাপ্য পেনশন নিতে এতো সমস্যার শিকার হতে হবে ভাবতে পারেননি পুঞ্জিমাতা।

WhatsApp chat
error: