লালু বাইরে আসার পরের দিনই, ফেয়ারওয়েল হয়ে যাবে নীতিশের: তেজস্বী যাদব

প্রতিফলক নিউজ ব্যুরো :জমে উঠেছে বিহার বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার পর্ব। বহু বছর পর এই প্রথম বিহারের ভোটের ময়দানে নেই লালু প্রসাদ যাদব। কিন্তু তিনি সম্প্রতি পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির একটি মামলায় জামিন পেয়েছেন। কিন্তু অন্য একটি মামলা চলতে থাকায় তিনি বাইরে আসতে পারছেন না। ‘লালু বাইরে আসবেন আগামী 9 তারিখ আর তারপরের দিনই 10 তারিখ হবে নীতীশ কুমারের ফেয়ারওয়েল’ বিহারের বিদায়ী মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি ঠিক এই ভাষাতেই তোপ দাগেন তেজস্বী ।

বিহারে ভোটের প্রচারে লালু না থাকলেও। মঞ্চ কাঁপাচ্ছেন তার উত্তরসূরিরা। হিসুয়ায় একটি নির্বাচনী প্রচারে তেজস্বী বলেন,’লালু একটি মামলায় জামিন পেয়েছেন এবং আরেকটি মামলার শুনানি আছে আগামী 9 তারিখ। ঘটনাচক্রে সেদিন আমার জন্মদিন। লালু বাইরে আসবেন 9 তারিখ এবং পরের দিন 10 তারিখ নীতিশের ফেয়ারওয়েল। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য 10 তারিখ বিহারে ভোট গণনা হবে’ ।

বিহারে বর্তমান সরকারকে সরিয়ে বিরোধী জোট ক্ষমতায় আসবে বলে দাবি করে তেজস্বী যাদব সরকারের প্রতি একগুচ্ছ ব্যর্থতার অভিযোগ আনেন।তার ভাষণে বলেন, জে ডি ইউ, বিজেপির সরকার দুর্নীতি প্রতিরোধে ব্যর্থ তাছাড়া রাজ্যে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতেও পারেনি। তরুণ প্রজন্মকে কাজের জন্য এখনও বাইরের রাজ্যে যেতে হচ্ছে। গত পাঁচ বছরে রাজ্য কোনভাবেই শিল্পায়নের পথে হাঁটতে পারিনি।

নিতিশ কুমারের প্রতি লক্ষ্য করে তেজস্বী বলেন, “নিতিশজি আপনি বয়সের ভারে ক্লান্ত। বিহারের দায়িত্বভার আপনি সামলাতে পারবেন না, আপনার এখন বিশ্রাম প্রয়োজন।” বিরোধী মহাজোট ক্ষমতায় এলে বিহারের 10 লক্ষ কর্মসংস্থানের আশ্বাসের কথা আবারও মনে করিয়ে দেন লালু পুত্র ।এদিন জনসভা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতিও প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে তিনি বলেন,” প্রধানমন্ত্রীজি আমি জানতে চাই , বিহার কবে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা পাবে?” ।বিহার জুড়ে তেজস্বীর নির্বাচনী জনসভা গুলিতে উপচে পড়া ভিড় কপালে চিন্তার ভাঁজ বাড়াচ্ছে সরকারপক্ষের ।

WhatsApp chat
error: