সুশান্ত ন্যায়বিচার পাবেন, অভিনেতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করে আশ্বাস হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীর

নিজস্বসংবাদদাতা প্রতিফলক ডেস্কঃ সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্য ভেদ করতে জোরকদমে তদন্ত শুরু করেছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনী। এর মধ্যে শনিবার সুশান্তের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে সুশান্ত ন্যায়বিচার পাবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর লাল খট্টর ।

জানা গিয়েছে, এদিন দুপুরে সুশান্তের বড়দিদি নীতু সিংয়ের ফরিদাবাদের বাড়িতে হাজির হন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী। তিনি সুশান্তের পরিবারকে সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি যথোপযুক্ত তদন্ত হওয়ার আশ্বাস দেন। মুখ্যমন্ত্রীর সামনে কান্নায় ভেঙে পড়েন সুশান্তের বাবা কে কে সিং রাজপুত। তখনই তাঁর পিঠে হাত রেখে সান্ত্বনা দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সুশান্ত সুবিচার পাবে।’ এরপর সুশান্তের বাবার সঙ্গে দেখা করার কথা জানিয়ে মনোহর লাল খট্টর ট্যুইটে লেখেন, ‘আজ প্রয়াত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের বাবা ও দিদির সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানাই। ওনাদের বলি, তদন্তভার সিবিআই-এর হাতে যখন গিয়েছে, তখন নিঃসন্দেহে সুবিচার মিলবে।’

এপ্রসঙ্গে উল্লেখ্য, নীতু সিং রাজপুতের স্বামী অর্থাৎ সুশান্তের জামাইবাবু ওপি সিং হলেন হরিয়ানা পুলিশের সিনিয়র আইপিএস অফিসার।
অন্যদিকে, সুশান্তের হাতে লেখা ডায়ারির পাতা ছেঁড়া নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠে এসেছে। এর মধ্যেই ওই ডায়ারির একটি পাতা এবং ‘ছিছোড়ে’ নাম লেখা একটি জলের বোতল এদিন প্রকাশ্যে এনেছেন সুশান্ত মৃত্যুর অন্যতম অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী। এগুলোর ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তিনি দাবি জানিয়েছেন, সুশান্তের এই দুটো সম্পত্তি ছাড়া তাঁর কাছে আর কিছু নেই। রিয়ার নামে যখন সুশান্তের টাকা নয়ছয় করার অভিযোগ উঠেছে, তদন্তকারীদের প্রশ্নের যথাযথ কোনও জবাব দিতে পারেননি রিয়া, সেই সময় তাঁর এই পোস্ট যথেষ্ট তাৎপর্যমূলক।

এদিকে, সুশান্ত মৃত্যু মামলার তদন্ত বিহার পুলিশের থেকে মুম্বই পুলিশের হাতে নিয়ে আসার আবেদন করে সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন দাখিল করেছিলেন রিয়া। এবার সেই পিটিশনেরই পাল্টা হলফনামা দাখিল করলেন সুশান্তের বাবা কে কে সিং রাজপুত। এদিন শীর্ষ আদালতে দাখিল করা হলফনামায় কে কে সিং রাজপুত বলেন, এই মামলায় ইতিমধ্যেই এফআইআর দায়ের করেছে সিবিআই। রিয়া প্রথমে সিবিআই তদন্ত চেয়েও এখন মত বদলাচ্ছেন। এমনকি রিয়া এই মামলার মূল সাক্ষী সিদ্ধার্থ পিঠানিকে প্রভাবিত করছেন এবং মুম্বই পুলিশ তদন্তে অসহযোগিতা করছেন অভিযোগ তুলে হলফনামায় প্রশ্ন তোলা হয়েছে, মুম্বই পুলিসকে পাঠানো সিদ্ধার্থ পিঠানির ইমেলের কপি রিয়া কীভাবে জোগাড় করল। সেই ইমেলের কপি রিয়ার হাতে কে তুলে দিল?
শীর্ষ আদালত এই মামলার পরবর্তী শুনানি ১১ তারিখ ধার্য করেছে।

WhatsApp chat
error: