প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করল মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন

প্রতিফলক নিউজ ডেস্ক:দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান। অবশেষে নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে চলেছে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন। রাজ্য সরকার পোষিত এডেড মাদ্রাসাগুলিতে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। আগামী অক্টোবর থেকে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হতে চলেছে। যার বিস্তারিত তথ্য আগামী ৬ সেপ্টম্বর কমিশনের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে ।

এমনিতেই মাদ্রাসাগুলিতে শিক্ষকের ব্যাপক শূন্যপদ রয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে পঠনপাঠনের উপর। কিন্তু মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থায় সব থেকে ক্ষতির দিক হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে বহু মাদ্রাসায় স্থায়ী প্রধান শিক্ষক না থাকা। বর্তমানে রাজ্যের অর্ধেকের বেশি মাদ্রাসায় স্থায়ী প্রধান শিক্ষক নেই। যার ফলে মাদ্রাসাগুলি পরিচালনার ক্ষেত্রে তীব্র সমস্যা দেখা দিয়েছে। দীর্ঘ দিন ধরে স্থায়ী প্রধান শিক্ষক না থাকার ফলে মাদ্রাসার পরিকাঠামো উন্নয়ন থেকে পঠনপাঠনে বিরূপ প্রভাব পড়েছে। এই সুযোগ পরিচালন সমিতি’র অসাধু ব্যক্তিরা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে দিয়ে একের পর এক বেনিয়ম করে চলেছেন বলে অভিযোগ উঠছে। এসব কারণেই বহু দিন ধরে মাদ্রাসায় স্থায়ী প্রধান শিক্ষক নিয়োগের দাবি জোরালো হচ্ছিল । এবার সেই পথে হাঁটতে চলেছে মাদ্রাসা সার্ভিস কমিশন।

উলেখ্য, রজ্যে মাদ্রাসা শিক্ষা পর্যদের অনুমোদিত ৬১৪টি সরকার পোষিত এডেড মাদ্রাসা রয়েছে। যার মধ্যে ১৭টি মাদ্রাসা সরকারি অনুমোদন পেলেও, এখনও তা চালু করা হয়নি।ওই ১৭টি মাদ্রাসা বাদ দিলে, এই মুহুর্তে ৫৯৭টি মাদ্রাসা চালু হয়েছে। তার মধ্যে স্থায়ী প্রধান শিক্ষক নেই ৩৩৭টি মাদ্রাসায়। এর মধ্যে ২০৪টি হাইমাদ্রাসায় প্রধানশিক্ষক শূন্য। রাজ্যের ১০২টি সিনিয়ার মাদ্রাসার মধ্যে ৭২টি’তে স্থায়ী প্রধান শিক্ষক নেই। স্থায়ী প্রধান শিক্ষক নেই ৬১টি জুনিয়ার হাইমাদ্রাসাতেও। অর্থাৎ রাজ্যের অর্ধেকের বেশি মাদ্রাসাতেই নেই স্থায়ী অভিভাবক। যার ফলে অভিভাবকহীন ভাবেই চলছে মাদ্রাসাগুলি। এবার স্থায়ী প্রধান শিক্ষক নিয়োগ করে মাদ্রাসা শিক্ষার মান আরও বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

WhatsApp chat
error: