চিনের সঙ্গে যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হতেই প্রতিরক্ষা বাড়াতে ৩৩ টি যুদ্ধবিমান কিনতে চলেছে ভারত

প্রতিফলক ডেস্কঃ লাদাখে চীনের আগ্রাসী নীতি ও ভারতীয় সেনাদের ওপর আক্রমণের ফলে বর্তমান পরিস্থিতিতে ভারত ও চীনের মধ্যে যুদ্ধের আবহ তৈরি হতে চলেছে। যদিও দু’দেশের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চলছে। তবে ইতিপূর্বেই ভারত ৩৩ যুদ্ধবিমান কেনার প্রস্তুতি নিয়েছে। এরমধ্যে ১২ টি অত্যাধুনিক সুখোই ও ২১ টি যুদ্ধবিমান। সংবাদ সূত্রে জানা গেছে, এই পরিকল্পনার জন্য ৫ হাজার কোটি বরাদ্দ করা হয়েছে ভারতীয় সেনাতে। যা ভারতীয় বায়ুসেনাকে খুবই শক্তিশালী করে তুলবে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কাছে ভারতীয় বায়ুসেনা খুব দ্রুত এই ৫ হাজার কোটি টাকার অনুমোদন চেয়েছে। এবং যুদ্ধবিমান গুলি খুব দ্রুত কেনার অনুরোধ করা হয়েছে। সূত্রের খবর, আগামী সপ্তাহে এই অনুমোদনের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী। রাশিয়া থেকে যে মিগ-২৯ নিয়ে পূর্বে যে চুক্তি হয়েছিল তার কিছু পরিবর্তন এনে নতুন সংযোজন করা হবে। বিশেষজ্ঞদের মতে মিগ-২৯ দুটি ইঞ্জিন শত্রুপক্ষের বিমানকে নিখুঁত লোককে ধ্বংস করার ক্ষমতা রাখে।

উল্লেখ্য, চীনের সঙ্গে ভারতের পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তপ্ত হতে চলেছে এই পরিস্থিতিতে ভারতীয় বিমান বাহিনীকে বিমান থেকে নিক্ষেপ যোগ্য ব্রক্ষস ক্রুজ মিসাইল কে যুদ্ধের ব্যবহারের জন্য সবুজ সংকেত দিয়েছে সরকার। এর ফলে ভারতীয় বিমানবাহিনী নিরাপদ স্থান থেকে চীনের সামরিক ঘাঁটি এবং বিমান ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিতে পারবে।

এই বছরের শুরুতেই ভারতের অত্যাধুনিক সুখোই-৩০ যুদ্ধবিমান ও ব্রক্ষ্মস ক্ষেপণাস্ত্রের সফল সংযোজন ঘটানো হয় ভারতীয় বিমান বাহিনীতে। এর পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে,এবার যুদ্ধের ক্ষেত্রে সরাসরি এই এই মিসাইল টিকে ব্যবহার করতে পারবে ভারতীয় বায়ুসেনা। ভারতীয় লাদাখ সীমান্ত নিয়ে চীনের আগ্রাসনের ফলে দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধের পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। ভারতীয় বায়ুসেনা, এই উষ্ণ পরিস্থিতিতে ব্রাক্ষস কে সামরিক অভিযানের যুক্ত করা কে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলে মনে করছে।

WhatsApp chat
error: