ড. গৌতম পাল রচিত ‘কোভিড-১৫ ও জনস্বাস্থ্য’ শীর্ষক বইটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন ড. অর্ণব সেনগুপ্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, প্রতিফলক : কোভিড-১৫ ও জনস্বাস্থ্য ড. গৌতম পাল রচিত গুরুত্বপূর্ণ বইটি কলকাতা প্রেসক্লাবে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলে ড. অর্ণব সেনগুপ্ত, উপস্থিত ছিলেন ড. ডি এন বন্দ্যোপাধ্যায়, ড. সুশীলচন্দ্র বিশ্বাস, দাশগুপ্ত প্রকাশনের পক্ষে ছিলেন অরবিন্দ দাশগুপ্ত। কোভিড-১৯ একটি অভূতপূর্ব মহামারী (প্যানডতেমিক) ব্যাধি। অত্যন্ত সংক্রামক হওয়ায় খুব অল্প সময়ের মধ্যে কোভিড-১৯ ব্যাধিটি গােটা বিশ্বে সংক্রামিত হয়েছে। এছাড়া ব্যাধিটি প্রাণঘাতী হওয়ায় এবং নিরাময়ে নির্দিষ্ট কোনাে প্রতিষেধক বা টীকা বিদ্যমান না থাকায় ইতােমধ্যে এই ব্যাধিতে বহু মানুষের প্রাণনাশ ঘটেছে। আশার কথা, খুব অল্প সময়ের মধ্যে কোভিড-১৯ নিরাময়ের টাকা (ভ্যাকসিন) চিকিৎসা ব্যবস্থায় প্রচলিত হবার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

নিবারণ যে কোনাে ব্যাধির নিরাময়ের শ্রেষ্ঠ পন্থা এই প্রবচনটি আমরা প্রায় সকলেই জানি। কোভিড-১৯ ব্যাধিটিকে নিবারণ করার জন্য ব্যাধিটির কারণ ও সংক্রমণের কৌশল সর্বাগ্রে জানা দরকার। এই বইটি কোভিড-১৯ ব্যাধিটির রােগতত্ত্ব ও স্বাস্থ্যসম্মত জীবনচর্যা সম্বন্ধে সাধারণ নাগরিকদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করে কোভিড-১৯ ব্যাধিটিকে নিবারণ করতে সাহায্য করবে। বইটির মাধ্যমে আমি আমার সামাজিক দায়বদ্ধতার ঋণ কিছুটা পরিশােধ করার চেষ্টা করেছি।

বইটির মুখবন্ধ:

কোভিড-১৯ একটি অভূতপূর্ব মহামারী (প্যানডেমিক) ব্যাধি। অত্যন্ত সংক্রামক হওয়ায় খুব অল্প সময়ের মধ্যে কোভিড-১৯ ব্যাধিটি গােটা বিশ্বে সংক্রামিত হয়েছে। এছাড়া ব্যাধিটি প্রাণঘাতী হওয়ায় এবং নিরাময়ে নির্দিষ্ট কোনাে প্রতিষেধক বা টীকা বিদ্যমান না থাকায় ইতােমধ্যে এই ব্যাধিতে বহু মানুষের প্রাণনাশ ঘটেছে। আশার কথা, খুব অল্প সময়ের মধ্যে কোভিড-১৯ নিরাময়ের টীকা (ভ্যাকসিন) চিকিৎসা ব্যবস্থায় প্রচলিত হবার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

নিবারণ যে কোনাে ব্যাধির নিরাময়ের শ্রেষ্ঠ পন্থা এই প্রবচনটি আমরা প্রায় সকলেই জানি। কোভিড-১৯ ব্যাধিটিকে নিবারণ করার জন্য ব্যাধিটির কারণ ও সংক্রমণের কৌশল সর্বাগ্রে জানা দরকার। এই বইটি কোভিড-১৯ ব্যাধিটির রােগতত্ত্ব ও স্বাস্থ্যসম্মত জীবনচর্যা সম্বন্ধে সাধারণ নাগরিকদের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করে কোভিড-১৯ ব্যাধিটিকে নিবারণ করতে সাহায্য করবে। বইটির মাধ্যমে আমি আমার সামাজিক দায়বদ্ধতার ঋণ কিছুটা পরিশােধ করার চেষ্টা করেছি।

কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয় আগস্ট, ২০২০, গৌতম পাল।

বইটির সূচীপত্র:

প্রথম অংশ : পূর্বাভাস

দ্বিতীয় অংশ: করােনা ভাইরাস রােগ ২০১৯ (বা কোভিড-১৯) কি?

তৃতীয় অংশ: সার্স-কভ-২ ভাইরাসের (বা কোভিড-১৯ ভাইরাসের) বংশ পরিচয়

চতুর্থ অংশ : সার্স-কভ-২ ভাইরাসের গঠন কেমন?

পঞ্চম অংশ : কোভিড-১৯ রােগটি মানুষের শরীরে কি করে সংক্রামিত হয়েছে?

ষষ্ঠ অংশ : মানুষ থেকে মানুষে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ

সপ্তম অংশ : কোভিড-১৯ রােগটি গুরুতর কেন ?

অষ্টম অংশ : কোভিড-১৯ রােগের উপসর্গ

নবম অংশ : কাদের শরীরে কোভিড-১৯ রােগের উপসর্গের তীব্রতা দেখা যায়?

দশম অংশ : কোভিড-১৯ রােগ নির্ণয়ের বা শনাক্তকরণের উপায়

একাদশ অংশ : কোভিড-১৯ এর চিকিৎসা

দ্বাদশ অংশ : কোভিড-১৯ এর নিবারণ ও নিয়ন্ত্রণ

ত্রয়ােদশ অংশ : পৃথিবী থেকে কোভিড-১৯ রােগটিকে কি চিরতরে বিলুপ্ত করা যাবে?

চতুর্দশ অংশ: জনস্বাস্থ্য সম্পর্কিত ভাবনা

পঞ্চদশ অংশ : অন্ত্যভাষ।

WhatsApp chat
error: