লিবিয়ায় স্থায়ী যুদ্ধ বিরতি কার্যকর ;ঐতিহাসিক চুক্তিতে স্বাক্ষর যুযুধান দু’পক্ষের

প্রতিফলক আন্তর্জাতিক ডেস্ক :উত্তর আফ্রিকার দেশ লিবিয়ায় গাদ্দাফি জামানার পতনের পর গৃহযুদ্ধে জেরবার গত এক দশক ধরে।এবার যুদ্ধরত দুটি গোষ্ঠী স্থায়ী যুদ্ধবিরতিতে স্বাক্ষর করেছে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রসংঘের লিবিয়া মিশন। জাতিসংঘ আজ জানায়, দু’পক্ষই যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হওয়ায়, বিলম্ব হীন ভাবে লিবিয়ায় যুদ্ধবিরতি কার্যকর করা হয়েছে।

জেনেভায় চুক্তি স্বাক্ষর শেষে আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকার বা জি এন এ এবং খলিফা হাফতার বাহিনী বা এল এন এর সামরিক প্রতিনিধিরা জানান, আগামী মাসে তিউনিশিয়ায় রাজনৈতিক বিষয়ে আলোচনা হবে। রাষ্ট্রসংঘ নিয়োজিত দূত স্টিফেন টরকো উইলিয়ামসের নেতৃত্বে বিবাদমান দুপক্ষের 5 প্লাস 5 সামরিক প্রতিনিধিদের কমিশন গত একসপ্তাহ আলোচনার পর স্থায়ী চুক্তিতে সম্মত হয়। এই চুক্তিকে রাষ্ট্রসংঘ ‘লিবিয়ার শান্তি সমৃদ্ধি ও স্থিতিশীলতায় এক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ’ বলে চিহ্নিত করেছে।

চুক্তিতে শর্ত হিসেবে বলা হয়েছে, আগামী তিন মাসের মধ্যে লিবিয়ায় অবস্থানরত সমস্ত ভাড়াটিয়া এবং বিদেশি সৈন্যরা সে দেশ ত্যাগ করবে। চুক্তির একটি অংশ হিসেবে গত এক বছরের মধ্যে এই প্রথম লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় শহর বেনগাজিতে বাণিজ্যিক যাত্রীবাহী বিমান অবতরণ করেছে।

উল্লেখ্য, ন্যাটো প্ররোচিত বিদ্রোহে গাদ্দাফি সরকারের পতনের পর গৃহযুদ্ধে জেরবার লিবিয়ায় বিভিন্ন সশস্ত্র গোষ্ঠী সক্রিয় হয়ে ওঠে। গড়ে ওঠে দুটি সমান্তরাল সরকার। একটি রাষ্ট্রসংঘ সহ আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ত্রিপোলি ভিত্তিক সরকার বা জি এন এ। এবং অন্যটি দেশটির পূর্বাঞ্চলে গঠিত খলিফা হাফতার বাহিনী নিয়ন্ত্রিত সরকার। খলিফা হাফতার কে সমর্থন দিয়ে আসছে রাশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং মিশর। এবং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত ত্রিপোলি ভিত্তিক সরকারকে সমর্থন দিয়ে আসছে তুরস্ক।

যুদ্ধরত দুটি গোষ্ঠীর স্থায়ী যুদ্ধ যুদ্ধবিরতি চুক্তিতে স্বাক্ষর নিঃসন্দেহে এক আশার আলো তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। দীর্ঘ এক দশকেরও বেশি সময় ধরে গৃহযুদ্ধ বিধ্বস্ত লিবিয়ায় সত্যিই কি শান্তি ফিরবে, সময় তার উত্তর দেবে ।

সূত্র :আল জাজিরা

WhatsApp chat
error: